বাচ্চাকে ঘুমের মধ্যে খাওয়ানোর কুফল : Nursing Bottle Caries

বাচ্চাকে ঘুমের মধ্যে খাওয়ানোর কুফল : Nursing Bottle Caries

অনেক মায়েদের অভিযোগ, “বাচ্চা খেতে চায় না”। আসলে এই অভিযোগ করেন না এমন মা খুঁজে পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ। আর এই সমস্যার সহজ সমাধান বের করে নেন অনেকে। আর তা হল বাচ্চাকে ঘুমের মধ্যে খাওয়ানো। আর এই ঘুমের মধ্যে খাইয়ে মায়েরা কিছুদিনের জন্য ঝামেলার হাত থেকে তো বেচে যান, কিন্তু নিজেদের এবং বাচ্চাদেরকে ঠেলে দেন আরো বড় ভোগান্তির দিকে। সেই ভোগান্তির নাম নারসিং বটল ক্যারিজ।

নারসিং বটল ক্যারিজ কি

যখন বাচ্চাদের ঘুমের মধ্যে খাওয়ানো হয় কিন্তু খাবার পর মুখ পরিষ্কার করে দেয়া হয় না তখন খাবার দাঁতে লেগে থাকে এবং সারারাত ঐ অবস্থায় থাকে। আমরা জানি যে দুধ দাঁত এমনিতেই স্থায়ী দাঁতের চেয়ে দুর্বল এবং ক্ষয় প্রতিরোধে কম কার্যকরী। আর ডেন্টাল ক্যারিজ বা দাঁত ক্ষয় নিয়ে আমাদের এই পোস্টটি যদি পড়ে থাকেন তাহলে এটাও নিশ্চয়ই জানেন যে ক্যারিজ বা দাঁত ক্ষয় হবার জন্য যতগুলো ফ্যাক্টর লাগে তার সবই একসাথে কাজ করতে থাকে যদি রাতে ব্রাশ না করে (বাচ্চাদের ক্ষেত্রে মুখ ভেজা তুলা বা কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করে না দিয়ে) ঘুমানো হয়। এরকম দীর্ঘদিন চলতে থাকলে বাচ্চাদের খুব অল্প বয়সে সামনের ও পিছনের দুধ দাঁতগুলো ডেন্টাল ক্যারিজ বা ক্ষয় দ্বারা আক্রান্ত হয় এবং নষ্ট হয়ে যায়।

নারসিং বটল ক্যারিজ কেন অন্যান্য ক্যারিজ বা ক্ষয়ের চেয়ে বেশি ভোগান্তির কারন

নারসিং বটল ক্যারিজ হয় খুব কম বয়সে হয়। সাধারনত ২-৪ বছর বয়সের মধ্যেই দেখা যায়। এই ধরনের ক্যারিজে খুব দ্রুত অনেকগুলো দাঁত নষ্ট হয় এবং যতদিনে অভিভাবক বাচ্চাকে নিয়ে ডাক্তারের কাছে আসেন ততদিনে অনেকগুলো দাঁতে পাল্প থেরাপি (রুট ক্যানাল/পাল্পেক্টোমি) প্রয়োজন হয়ে পড়ে। এই পাল্পেক্টোমি চিকিৎসা একটু সফিস্টিকেটেড এবং রোগীকে অনেক্ষন হা করে থাকতে হয়। কিন্তু বাচ্চারা এত ছোট থাকে যে তারা যথেষ্ট বুঝতে ও সহযোগীতা করতে পারেনা যা চিকিৎসাকে আরো ঝামেলাপূর্ণ ও ব্যয়বহুল করে তোলে। আবার বাচ্চার বয়স এত কম থাকে যে দাঁত ফেলে দেয়াও ভবিষ্যতে নানা সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে(দুধ দাঁত পড়ার/ফেলার সঠিক সময় সম্পর্কিত আমাদের এই পোস্টটি পড়তে পারেন) । ফলে দেখা যায় হয় বাচ্চা ও অভিভাবক অনেক ভোগান্তির মধ্য দিয়ে চিকিৎসা করান অথবা বাচ্চাকে ওষুধ খাইয়ে রাখেন যার নিজস্ব কুফল তো আছেই।

অতএব, দেখা যাচ্ছে যে শুধুমাত্র রাতে ঘুমানো অবস্থায় বাচ্চাকে খাওয়ানোর দরুন কি পরিমান জটিল ও ঝামেলার হয়ে যাচ্ছে দাঁতের চিকিৎসা।

নারসিং বটল ক্যারিজ এড়ানোর উপায়

প্রথম করণীয় হচ্ছে বাচ্চাকে ঘুমের মধ্যে না খাওয়ানো। কোন কারনে যদি একান্তই ঘুমন্ত বাচ্চাকে খাওয়াতেই হয় তবে খাওয়ানোর পর ভেজা তুলা বা কাপড় দিয়ে ভালো করে দাঁত ও মুখ পরিষ্কার করে দেয়া। দ্বিতীয় করণীয় হল আপনার আশেপাশে যাদের অল্পবয়েসী বাচ্চা আছে তাদের কাছে এই মেসেজ পৌঁছে দেয়ার চেষ্টা করবেন।

আজ এ পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকুন। আর মনে রাখবেন বাচ্চাদের দাঁত ওঠার শুরু থেকেই দাঁতের যত্ন নেয়ার শুরু।

Leave a Reply