বাচ্চাদের দুধ দাঁত ওঠা ও পড়ার সময়কাল।

বাচ্চাদের দুধ দাঁত ওঠা ও পড়ার সময়কাল।

ডেন্টাল প্র‍্যাকটিসে অভিভাবকদের যে প্রশ্নটির উত্তর ডাক্তারদের সম্ভবত সবচেয়ে বেশি দিতে হয় তা হল “এই দাঁতটা কি পড়লে আবার উঠবে?”। চলুন দেখে নিই বাচ্চাদের দুধ দাঁত কখন ওঠে আর কখন পড়ে এবং এই সময়ের কিছু সাবধানতা।

দুধ দাঁত কি ও এগুলোর কাজ কি?

দুধ দাঁত হল স্থায়ী দাঁতের পূর্বসূরি। বাচ্চাদের চোয়াল একবারে স্থায়ী দাঁত ওঠার উপযোগী নয়। তাই চোয়ালের গঠন ও দাঁতের আকারের সামঞ্জস্য রাখার জন্য প্রথমে ছোট দুধ দাঁত ওঠে। তারপর তার নীচের থেকে একে একে ওঠে স্থায়ী দাঁত। তার মানে দুধ দাঁতের কাজ হল খাওয়া দাওয়া আর স্থায়ী দাঁতের জন্য জায়গা ধরে রাখা।

মোট বিশটি দুধ দাঁত ওঠে। মাড়িকে যদি আমরা চারভাগে ভাগ করি তবে প্রত্যেক ভাগে পাঁচটি করে দাঁত ওঠে। –

  1. উপরে ডানে ৫ টি
  2. উপরে বামে ৫ টি
  3. নীচে ডানে ৫ টি
  4. নীচে বামে ৫ টি

এই পাঁচটি দাঁতকে যথাক্রমে A,B,C,D,E বলা হয়। এগুলো পড়ে যে স্থায়ী দাঁত ওঠে তাদের বলা হয় যথাক্রমে 1,2,3,4,5।

গুরুত্বপূর্ণ : মনে রাখবেন মাড়ির এই পাঁচটি দুধ দাঁত এর পরের অংশে প্রত্যেক ভাগে আরো তিনটি স্থায়ী দাঁত ওঠে। এরা হল ৬,৭,৮ নম্বর দাঁত। এদের কোন দুধ দাঁত থাকে না। এরা প্রথমবারেই স্থায়ী দাঁত হিসেবেই ওঠে

তাহলে প্রত্যেক ভাগে ৮ টি করে মোট ৩২ টি দাঁত হয়।

দুধ দাঁত ওঠা ও পড়ার সময়কাল

বাচ্চাদের দুধ দাঁত সাধারনত ওঠা শুরু হয় ৬মাস বয়স থেকে। সবগুলো দাঁত ওঠার সময় জানা বা মুখস্ত রাখা জরুরী নয় ☺। এই সময় বাচ্চারা যেকোন জিনিস কামড়াতে চায়। আর দাঁত ওঠার সময় সামান্য ব্যাথা অনুভব হতে পারে।

তাই এই সময় একটু বেশি খেয়াল করে দাঁতের যত্ন নিতে হবে। এইসময় মাড়ি দাঁত থেকে একটু আলগা থাকে। খাবার জমে সহজেই। তাই এই বাড়তি যত্ন।

দুধ দাঁত ওঠার চেয়ে দুধ দাঁত পড়ার সময় সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা থাকা বেশি জরুরি। ঠিক সময়ের বেশি আগে কিংবা বেশি পরে দুধ দাঁত পড়ে যাওয়া দুটোই খারাপ। নিচের ছবিটা দেখুন-

প্রায়ই দেখা যায় বাচ্চাদের ব্রাশ করানোর সময় সামনের দিকের চেয়ে পিছনের দাঁত এর উপর কম গুরুত্ব দিয়ে থাকেন অভিভাবকরা। অথচ দেখুন, সামনের দাঁতগুলো খুব দ্রুত পড়ে যায়, ৬-৮ বছরের মধ্যে। কিন্তু পিছনের দাঁতগুলি পড়ার স্বাভাবিক সময় কিন্তু আরো পরে। তাই ব্রাশ করা একটু কঠিন বলে পিছনের দাঁতকে অবহেলা করা বড় ভুল।

দুধ দাঁত স্বাভাবিক সময়ের আগে/পরে পড়লে কি হয়

দুধ দাঁত যদি স্বাভাবিক।সময়ের আগে পড়ে যায়, তবে স্থায়ী দাঁত সঠিক জায়গায় উঠতে পারে না। তাছাড়া পাশের দাঁত নিজের জায়গা থেকে সরে যায়। ফলে স্থায়ী দাঁত আঁকাবাঁকা হয়ে ওঠে। দুধ দাঁত স্বাভাবিক সময়ের বেশি সময় মাড়িতে থাকলেও একই সমস্যা হতে পারে। তখন স্থায়ী দাঁত আটকা পড়ে যায় অথবা মাড়ির ভিতরে বা বাইরের পাশ দিয়ে ওঠে। তাই যেই দুধ দাঁত যখন পড়ার সময় তখন বা অন্তত তার কাছাকাছি সময় পর্যন্ত টিকিয়ে রাখা দরকার।

“এই দাঁত তো পড়েই যাবে” এই ভেবে দুধ দাঁতের যত্নে অবহেলা করা যাবে না।মনে রাখবেন দুধ দাঁত স্থায়ী দাঁতের চেয়ে দুর্বল হয়। তাই এদের যত্নও বেশি নিতে হবে।

আজ এই পর্যন্তই। সবাই ভালো থাকুন। আর দাঁতের যত্ন নিন।

This Post Has 10 Comments

  1. এক মাস হলো দুধ দাত তুলে ফেলেছি কিনতু এখনো স্থায়ী দাত উঠতেছে না।কত দিন সময় লাগে স্থায়ী দাত উঠতে? জানালে খুব উপকৃত হব।

    1. এজন্য ধরাবাঁধা কোন সময় নেই। যদি সঠিক সময়ে নড়া দাঁত ফেলে দেওয়া হয় সেটা তাড়াতাড়ি ওঠে সাধারণত।

      সঠিক সময় সময়ের আগে ফেলে দিতে হলে সেই দাঁত উঠতে সময় লাগতে পারে, এতে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। বাচ্চাকে শক্ত খাবার যেমন পেয়ারা আপেল এগুলো কামড়ে খেতে দিন। লক্ষ্য রাখুন যে বয়স নির্দিষ্ট বছরের চাইতে ছয় মাস বা এক বছর পার হয়ে যাচ্ছে কিনা। বেশি হয়ে গেলে নিকটস্থ ডেন্টাল সার্জনের পরামর্শ নিন।

  2. আমার বাচ্চার বয়স ৬ বছর ৬ মাস, তার নিচের সারির একটা দাঁত নড়ছে কিন্তু এই দাঁতটি পড়ার আগেই বেশ ভেতরের দিকে দাঁতের সারি থেকে আরও একটু দূরে আর একটি দাঁত উঠে গেছে। এক্ষেত্রে করণীয় কি? দাঁত কি স্বাভাবিক অবস্থায় আসবে?

    1. ছয় বছর বয়সে বাচ্চাদের প্রত্যেক চোয়ালের একেবারে ভেতরে একটি স্থায়ী দাঁত সরাসরি ওঠে। অর্থাৎ কোন দুধ দাঁত পড়ার প্রয়োজন হয় না। আপনার কথা শুনে মনে হচ্ছে আপনার বেবির সেই দাঁত টিই উঠছে। এ নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। এটি সেই দাঁত কিনা সেটা বোঝার উপায় হল দাঁত গুনে দেখা। এটি যদি চোয়ালের মাঝামাঝি থেকে গুনে ৬ নাম্বার দাঁত হয় তবে এ নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। এটি একটি স্থায়ী দাঁত যা এভাবেই ওঠে। সম্ভব হলে একটি ছবি যোগ করে দিন , তাহলে আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি।

  3. ৩ বছর আগে আমার মেয়ের(বয়স ৬.৫ বছর) উপরের সারির একটা দাতে আঘাত গেলে কালো হয়ে যায়, পরে ওই দাত ২ মাস আগে নড়ে। ২০ দিন আগে ডাক্তার এর কাছে উঠিয়ে নিই। এখনো নতুন দাত উঠেনি।এক্ষেত্রে করণীয় কি?

    1. দাঁতটি সামনের দিকের নাকি পেছনের সেটা উল্লেখ করেননি। সাধারণত আঘাত সামনের দাঁতে বেশি হয়ে থাকে। চিন্তিত হবার কোন কারন নেই। আপনার মেয়েকে শক্ত খাবার বেশি বেশি খেতে দিন। যেমন পেয়ারা,আপেল। মাড়িতে চাপ লাগলে দাঁত দ্রুত উঠে আসে। সাধারণত ৭-৮ বছর বয়সে সামনের দাঁতগুলি ওঠে। আপনার হাতে অনেক সময় আছে। আর যদি দাঁতটি পেছনের হয়ে থাকে সেক্ষেত্রেও উঠতে অনেক সময় বাকি।

  4. পড়ে নতুন দাঁত উঠেছে কিন্তু এদের দু’পাশের দুটি দাঁত পড়েছে প্রায় ৫ মাস কিন্তু উঠছে না। এ জন্য আমরা কি পদক্ষেপ নিবো। এখন বয়স ৭ বছর ৬ মাস।

    1. আরো অপেক্ষা করুন। এখনো অনেক সময় আছে । বাচ্চাকে শক্ত খাবার যেমন পেয়ারা আপেল এসব খেতে দিন। নিকটস্থ রেজিস্টার্ড ডেন্টাল সার্জনের সাথে পরামর্শ করে নিন।

  5. আমার ছেলের বয়স ৭ বছর ৩ মাস।তার উপরের পাটির দুটি দাত ও নিচের পাটির একটি দাঁত নড়ে।কিন্তু এখনও একটি দাঁত পরেনি।নিচের মাঝখানের দুটি দাঁতের পরের দাঁতটির ভিতর দিকে একটি দাঁত উঠে যাচ্ছে।এই জায়গার দুধ দাঁতটি কখনো নড়েনি।এখন করনীয় কি?

    1. এরকম ক্ষেত্রে দাঁত নিজে থেকে নড়বার অপেক্ষা করার দরকার নেই। আপনারাই দাঁতকে নাড়ানোর চেষ্টা করুন। এগুলো পড়েওম যাবার সময় হয়েছে। বাসায় না পারলে নিকটস্থ ডেন্টাল সার্জনের কাছে গিয়ে দাঁত ফেলে দিন।

Leave a Reply